বিডব্লিউএসএফ অনলাইন প্যারা চেস টুর্নামেন্ট

প্রকাশিত: ২১ ডিসেম্বর ২০২৩, ০৪:২৯ পিএম
শেয়ার করুন:  
বিডব্লিউএসএফ অনলাইন প্যারা চেস টুর্নামেন্ট

ক্রীড়া প্রতিবেদক:  মহান বিজয় দিবস ও ৩৫তম আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ হুইলচেয়ার স্পোর্টস ফাউন্ডেশন চতুর্থবারের মতো ২০-২১ ডিসেম্বর ২০২৩ দুই দিনব্যাপী আয়োজন করে বিডব্লিউএসএফ অনলাইন প্যারা চেস টুর্নামেন্ট ২০২৩। এ টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ হুইলচেয়ার স্পোর্টস ফাউন্ডেশনের ১২ জেলার ১২ জন শারীরিক প্রতিবন্ধী দাবাড়ুরা অনলাইনের মাধ্যমে অংশগ্রহণ করেন।

প্রথম দিনে টুর্নামেন্টের গ্রুপ পর্বের খেলায় চারটি গ্রুপে তিনজন করে অংশগ্রহণ করে। চারটি গ্রুপ থেকে ৮জন দাবাড়ু কোয়ার্টার ফাইনালে অংশগ্রহণ করে। দ্বিতীয় দিনে, প্রথম সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় ঢাকার রিফাত ও পাবনার ওলী। দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মুখোমুখি হয় নড়াইলের মামুন ও কুমিল্লার সোহেল।

ফাইনালে নড়াইলের মামুন ঢাকার রিফাতকে চেকমেট দেবার মধ্য দিয়ে চতুর্থ আসরের চ্যাম্পিয়নের খেতাব অর্জন করে এবং রিফাত রানার আপ হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে ন্যাশনাল প্যারালিম্পিক কমিটি অব বাংলাদেশের মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার মো. মাকসুদুর রহমান অনলাইনে যুক্ত হন এবং চ্যাম্পিয়ন ও রানার আপের নাম ঘোষণা করেন এবং তিনি বলেন, “ক্রীড়াক্ষেত্রে আপনাদের সকলের অংশগ্রহণ আমাদেরকে অনুপ্রাণিত করে কাজ করে যাবার জন্য। আমরা বিশ্বাস করি আপনারাই খেলাধুলার মাধ্যমে সকলের বাংলাদেশকে পরিচিত করবেন বিশ্ব দরবারে। ধন্যবাদ এই আয়োজনের মূল উদ্যোক্তা ইঞ্জিনিয়ার নূর নাহিয়ানকে। তার নেতৃত্বে ও বাংলাদেশ হুইলচেয়ার স্পোর্টস ফাউন্ডেশনের সাথে সম্পৃক্ত সকল কর্মকর্তা ও খেলোয়াড়বৃন্দদের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এভাবেই বিডব্লিউএসএফ আরো এগিয়ে যাক। অভিনন্দন বিজয়ী নড়াইলের মামুনকে।“

আয়োজক বাংলাদেশ হুইলচেয়ার স্পোর্টস ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার নূর নাহিয়ান জানান, “স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরাও পিছিয়ে থাকবে না সেই প্রত্যাশা আমাদের। খেলাধুলায় টেকনোলজির ব্যবহার আমরা সব জায়গায় দেখি। তার ধারাবাহিকতায় আমরা প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের খেলাধুলায় টেকনোলজিকে যুক্ত করবার লক্ষ্যেই ২০২০ সালে থেকে অনলাইনে দাবা টুর্নামেন্ট আয়োজন করে আসছি। আমরা বিশ্বাস করি, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা সুযোগ পেলে তারাও টেকনোলজির সদ্ব্যবহারের মধ্যে দিয়ে আগামীর বাংলাদেশ গড়ার অন্যতম কাণ্ডারি হতে পারবে। ধন্যবাদ জানাই এর সাথে যুক্ত সকলকে। ধন্যবাদ জানাই ন্যাশনাল প্যারালিম্পিক কমিটি অব বাংলাদেশের মাননীয় মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার মো. মাকসুদুর রহমান স্যারকে আমাদের সাথে যুক্ত হয়ে আমাদের খেলোয়াড়দের অনুপ্রাণিত করবার জন্য ও প্রাইজ মানির পরিমাণ বৃদ্ধির জন্য। আমাদের এই টুর্নামেন্টের বিজয়ী পাবেন ১৫০০ টাকা প্রাইজ মানি ও ট্রফি এবং রানার আপ পাবেন ১০০০ টাকা প্রাইজ মানি ও ট্রফি। ধন্যবাদ নবান্ন প্রকাশনীকে।“

চ্যাম্পিয়ন মামুন বলেন,”আমরা চাই অনলাইনের পাশাপাশি অফলাইনে আমাদের খেলাধুলার প্রসার বাড়ুক। ন্যাশনাল প্যারালিম্পিক কমিটি অব বাংলাদেশের সহযোগিতায় আমরা খেলোয়াড়রা যেন খেলাধুলায় সম্পৃক্ত থাকতে পারি সবসময় তাই স্যারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।“
রানার আপ রিফাত বলেন, “আমি বিডব্লিউএসএফ-এর সাথে যুক্ত থাকতে পেরে গর্বিত। কারণ, আমি যখন সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ত হয়ে আমার জগত অনেকটা সমৃদ্ধি হয়েছে এবং হচ্ছে। আমি আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই নূর নাহিয়ান ভাইকে।“

এইচ কে